৯ শিক্ষার্থীর সঙ্গে প্রাধান শিক্ষকের প্রতারণার প্রতিবাদে মানববন্ধন

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :
সিদ্ধিরগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মডল স্কুল এন্ড কলেজের ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতারণার প্রতিবাদে প্রধান শিক্ষক মোঃ খলিলুর রহমানের বিচারের দাবীত বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।
সোমবার (১৩ জুন) দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের নাসিক ১নং ওয়ার্ডের মিজমিজি তারা মার্কেট এলাকায় এ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে ভুক্তভোগী ৯জন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। এসময় তারা প্রতারক প্রধান শিক্ষক খলিলুর রহমানের অপকর্মের বিচার চেয়ে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ব্যবস্থা করার জন্য জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
পরে তারা নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে দ্বিতীয় দফায় বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে জেলা প্রশাসনের দষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা চালায়।
ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী মেহেরুন তার বক্তব্যে বলেন, অত্র স্কুলে আমরা বিগত ১০ বছর যাবৎ লেখাপড়া করছি। আমরা ২০১৯ সালের অষ্টম শ্রেনীর ফাইনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ২০২০ সালর জানুয়ারীতে নবম শ্রনীত ভর্তি হই। তিনমাস ক্লাস করার পর দেশে করোনা মহামারী শুরু হলে স্কুলের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর আমরা স্কুলে গিয়ে প্রধান শিক্ষক খলিলুর রহমানের সাথে যাগাযাগ করলে তিনি আমাদেরকে প্রাইভেট পড়তে বলে। তারপর থেকে ৮০০ টাকা বেতনে আমরা ওই স্কুলের তত্ত্বাবধানে প্রাইভেট পড়তে থাকি। আমাদর ব্যাচে ২০ জন ছাত্র-ছাত্রী ছিল কিন্তু করোনার কারণে অনেকে চলে যায়। শেষ পর্যন্ত আমরা ১১জন ছাত্র-ছাত্রী থেকে যাই। দুই জন ছাত্র এবং আমরা ৯ জন ছাত্রী। এছাড়া সময় মত আমাদের কাছ থেকে এসএসসি পরীক্ষার রেজিষ্ট্রেশন ফিও নেয়া হয়। ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহনের লক্ষ্যে আমাদর মডেল টেষ্ট পরীক্ষা বাবদ ফি এবং পরীক্ষাও নেয়। পরীক্ষা দেয়ার জন্য আমরা প্রস্তুতি নিতে থাকি কিন্তু পরবর্তীতে আমরা জানতে পারি যে, আমাদের রেজিষ্ট্রেশন এক বছর পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। এই বিষয়টি জানতে পেরে আমরা মর্মাহত। এ বিষয়ে আমাদর বিদুমাত্র ত্রুটি নেই। বিষয়টি স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামকে অবগত করলেও আমরা কোন সুরাহা পাইনি। আমরা অর্থলোভী, প্রতারক খলিলুর রহমানের প্রতারনার শিকার। আমরা জেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।
ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর অভিভাবক জাকিয়া বেগম জানায়, আমরা বিশ্বাস করে আমাদের সন্তানকে এই স্কুলে লেখা পড়া করার জন্য দিয়েছি। আমরা প্রতারিত হয়েছি। আমরা এর বিচার চাই। আমাদর সন্তানদের এ বছরের পরীক্ষায় অংশগ্রহনর ব্যবস্থা করার জন্য সরকারের কাছে দাবী জানাই।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী নাজমিন, সুখী, জান্নাত, মেহেরুন, মীম, কবিতা, তন্বি, আফসানা, সোনালীসহ অভিভাবক বৃন্দ।

 

এটাও চেক করেন

সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে যেমন পদ্মা সেতু দৃশ্যমান তেমনিভাবে আলীগঞ্জ মাঠও দৃশ্যমান – পলাশ

খবর নারাযনগঞ্জ.কম: জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব কাউসার আহমাদ পলাশ বলেছেন, বাঙালি …

Shares